ওয়েব ওয়ার্ল্ডে প্রচুর নতুন কাজের সুযোগ তৈরি হয়েছে। এর মধ্যে আউটসোসিং বা ফ্রিল্যান্সিং অন্যতম। এসব প্লাটফর্মে কাজ করতে হলে আপনাকে ভাল ভাল আউটসোর্সিং ওয়েবসাইট এর সাথে যুক্ত হতে হবে।

বেশিরভাগ সংস্থাগুলি প্রায়ই তাদের কিছু কাজ অন্য দেশের অন্যান্য কর্মীদের কাছে আউটসোর্স করে। এসব আউটসোর্স কাজের জন্য অনেক ওয়েবসাইট আছে। কিন্তু সবগুলো সাইটই যে ভালো বা আপনার জন্য উপযুক্ত হবে এমন নয়। কারণ, একেক ওয়েবসাইটের একেক ধরণের। যেমন – কোথাও নির্দিষ্ট ধরণের কাজ পাওয়া যায় আবার কিছু সাইট কেবল দক্ষ ফ্রিল্যান্সারদের জন্য আবার কিছু সাইট আছে যা সবার জন্য উন্মুক্ত।

কাজেই, আপনাকে প্রথমে সেরা ওয়েবসাইটটি বেছে নিতে যেটিতে আপনার উপযোগী কাজ রয়েছে অর্থাৎ, যেখানে আপনি খুব সহজে আপনার ইচ্ছেমতো কাজ খুঁজে পাবেন।

আউটসোর্সিং কি?

আউট সাইডে কাজের জন্য যে-সব সোর্স/উৎস রয়েছে, সেগুলোই আউটসোর্সিং। অর্থাৎ, কোন নির্দিষ্ট অফিস বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজের সোর্স না করে আপনি আউটে কাজের সোর্স করবেন। আউটসোর্সিং অনেকটা অনলাইনে চাকরির মতো। আপনি জেনে অবাক হবেন হবেন যে, আউটসোর্সিং করে অনেকে মাসে ৩ লাখ টাকার উপরে ইনকাম করতে পারে । অবিশ্বাস্য হলেও এটিই সত্যি আপনার চারপাশে এমন অনেকেই রয়েছে যারা আউটসোর্সিং করে এর থেকেও বেশি ইনকাম করে থাকেন।

আউটসোর্সিং এর সুবিধা

  • কাজ করার স্বাধীনতা
  • সময়ের স্বাধীনতা অর্থাৎ কাজ করার নির্ধারিত কোন সময় নেই। আপনার ইচ্ছে অনুযায়ী যেকোনো সময় কাজ করতে পারবেন।
  • কাজ করার জন্য নির্দিষ্ট কোন জায়গা নেই। পৃথিবীর যে কোনও প্রান্ত থেকে কাজ করা যায়।
  • কোম্পানী বা ক্লায়েন্ট চয়েস করার দারুণ সুবিধা।
  • চাকরির চেয়ে বেশি আয় করা যায়।
  • নিজের যোগ্যতা/মেধাকে সঠিক জায়গায় কাজে লাগানোর সুযোগ।
  • শিক্ষিত বেকারদের কর্মসংস্থান সম্ভব।
  • সময় বাঁচে ইত্যাদি ।

কী কী কাজে আউটসোর্স করা যায়?

যেসব কাজে আউটসোর্স করা যায় তা নিম্নে দেয়া হল-

  • একাউন্টিং
  • বুককিপিং
  • সেলস এবং মার্কেটিং
  • ডিজাইন
  • ম্যানুফ্যাকচারিং
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট
  • কাস্টমার সার্ভিস
  • ওয়েবসাইট মেইনটেইনেন্স
  • গ্রাফিক ডিজাইন ইত্যাদি।

আউটসোর্সিং এর জন্য সেরা ৫ টি ওয়েবসাইট

আজ আমি আউটসোর্সিং এর জন্য সেরা ৫ টি ওয়েবসাইট নিয়ে আলোচনা করা করব। আপনি আপনার ইচ্ছে মত, আপনার যোগ্যতা এবং দক্ষতার সাথে মিলে যায়, এমন আউটসোর্সিং ওয়েবসাইট গুলোতে কাজ করতে পারেন।

পৃথবী ব্যাপী কোম্পানীগুলোর কাজের ধরণ পাল্টে গেছে। অধিকাংশ কোম্পানীই এখন সরাসরি লোকজন নিয়োগ না দিয়ে তাদের সব ধরণের অফিসিয়াল কাজগুলো আউটসোর্স মার্কেটগুলো থেকে করিয়ে নেয়।

ছাত্রাবস্থায় যেসব কাজ করা যায় তাদের মাঝে আউটসোর্সিং অন্যতম। পড়াশুনা শেষ করে বা পড়াশুনায় থাকা অবস্থাতেই নিজের খরচ নিজে চালানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে। চাকরির থেকে চার গুন বেশি ইনকাম করে আবার কোন কোন ক্ষেত্রে আরও বেশি আয় করে। সেরা পাঁচটি আউটসোর্সিং ওয়েবসাইট হলোঃ

  • Upwork
  • Toptal
  • Freelancer
  • College recruiter
  • Guru

Upwork

Upwork একটি জনপ্রিয় আউটসোর্সিং ওয়েবসাইট। Upwork এর পুরনো নাম ওডেক্স। এটি, একটি আমেরিকান ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম, যেখানে ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য উদ্যোগ এবং ব্যক্তিরা সংযোগ স্থাপন করে। ২০১৫ সালে, এল্যান্স-ওডেস্ক সংযুক্তিটিকে Upwork হিসাবে পুনরায় ব্র্যান্ড করা হয়েছিল এবং সংস্থার পুরো নামটি এখন আপওয়ার্ক গ্লোবাল ইনক।২০১৫ সালে ক্যাম্পবেল, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।এর সদর দপ্তর সান্টা ক্লারা, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। স্ট্রেটিস করমণলাকিস, ওডিসিয়াস স্যাটালোস এর প্রতিষ্ঠাতা।

ইলেন্সের সাথে এক হয়ে Upwok নাম এখন আরও বড় ও বিস্তৃত। এটি প্রায় ২ মিলিয়ন Client আর ৯ মিলিয়ন Freelancer এর সবচেয়ে বড় আউটসোর্সিং মার্কেটপ্লেস । এখানে সবধরনের (যেমন- ছোট, বড়, স্বল্প-মেয়াদী এবং দীর্ঘ মেয়াদী ইত্যাদি) লক্ষ লক্ষ কাজ রয়েছে।

Upwork এ ফিক্সড রেট এবং ঘন্টা হিসেবে কাজ করা যায়। ফিক্সড রেট কাজের ক্ষেত্রে ক্লায়েন্টরা সম্পূর্ণ কাজ শেষ করার জন্য একটা নির্দিষ্ট অ্যামাউন্ট ঠিক করে দেয় আর ফ্রিল্যান্সাররা নিজেদের ডিমান্ডের সাথে মিলে কাজটি করার জন্য প্রপোজাল দেয়।সম্পূর্ণ কাজ শেষ হয়ে গেলে Client পেমেন্ট করে দেয়। ফিক্সড অ্যামাউন্টের কাজের পেমেন্টের ক্ষেত্রে Upwork কোন দায়িত্ব নেয় না।

Upwork এ ঘন্টা ভিত্তিক কাজই অধিক জনপ্রিয় । কাজের ধরণ অনুযায়ী ক্লায়েন্ট প্রতি ঘন্টার জন্য একটা নির্দিষ্ট অ্যামাউন্ট ঠিক করে দেয়। আর Freelancer রা বিট করে আরো বাড়িয়ে নিয়ে কিংবা ওই অ্যামাউন্টেই কাজ নিয়ে করতে শুরু করে।

Upwork এর অটোমেটিক টাইম ট্রেকার প্রতি মূহুর্তের কাজের ডাটা সংগ্রহ করে রাখে আর বায়ার সেগুলো দেখে শিওর হয় যে তার কাজে কোন ফাঁকি দেওয়া হচ্ছে কিনা। পেমেন্টের ক্ষেত্রেও কোন জালিয়াতি করার উপায় নেই, কারণ সেই দায়িত্বও আপওয়ার্ক নিয়ে নেয়।ঘন্টা হিসেবে কাজ করলে এক ঘন্টা পার হলেই এই এক ঘন্টার পেমেন্ট আপনার অ্যাকাউন্টে জমা হয়ে যায়।

ঘন্টা হিসেবে কাজ দেশে বসে চাকরি করার মতই।কোন একটি অফিসে চাকরি করলে আপনি ৮ ঘন্টা বা কিছুটা কম বেশি সময় নিয়ে কাজ করতেন এবং কাজের সময়ও কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ করত। এতে আপনার কিছু করার নেই। প্রতিদিন ইনটাইম অফিসে যেতেই হবে, নাহলে চাকরি থাকবে না। আর এখানে পুরোটাই আপনার উপর নির্ভর করে। আপনি যখন খুশি মন চাইলে কাজ করবেন, নাহলে করবেন না।

আপনার প্রোফাইলেই আপনি নির্ধারণ করে দিতে পারেন দিনে আপনি কয় ঘন্টা কাজ করবেন। আপনার ইচ্ছে মত যত ঘন্টা খুশি আপনি তত ঘন্টাই কাজ করতে পারবেন, এখানে বাধা দেয়ার কেউ থাকবে না। তাহলে আজই শুরু করে দিন। জেনে নিন Upwork এ কীভাবে অ্যাকাউন্ট খুলবেন ?

আপওয়ার্কে দক্ষ অদক্ষ সবার জন্যই সমান কাজের সুবিধা রয়েছে।তবে আপনি দক্ষ হলে অনায়াসে কাজ পেয়ে যাবেন। অদক্ষ হলে আপনার জন্য অপশন হচ্ছে ‘entry-level’ এ জয়েন করা। শুরুর দিকে কাজ পেতে একটু সময় লাগবে। কিন্তু একবার একটা কাজ পেয়ে সেটাকে তাদের আশানুরূপ সম্পন্ন করে দিতে পারলে ধীরে ধীরে আপনার কাজ বাড়তে থাকবে। রেজিস্ট্রেশন করুন

Toptal

টপটাল একটি গ্লোবাল রিমোট সংস্থা যা একটি ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম সরবরাহ করে যা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, ডিজাইনার এবং ব্যবসায় পরামর্শদাতাদের সাথে ব্যবসায়গুলিকে সংযুক্ত করে।২০১০ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ব্রেনডেন বেনেসকোট, তাসো ডু ভ্যাল এর প্রতিষ্ঠাতা।সিলিকন ভ্যালিতে এর সদর দপ্তর অবস্থিত।

টেকনোলোজি লাভারদের জন্য জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হচ্ছে Toptal. এই সাইটটি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার কিংবা একজন ওয়েব ডেভলপার অথবা সিস্টেম অ্যানালাইজারদের জন্য সবচেয়ে বেশি উপযোগী ।আপনি টপটালে শীর্ষ বিকাশকারী, ডিজাইনার এবং আর্থিক বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করতে পারেন

এখানে সবই ডেভেলপমেন্ট রিলেটেড কাজ অন্যান্য কাজ নেই বললেই চলে । এখানে ক্লায়েন্টের সংখ্যাও সামান্য ।

এই সাইটের প্রধান প্রধান ক্লায়েন্ট হলোঃ

  • জেপিমরগান
  • জেনডেক্স
  • এয়ারবিএনবি ইত্যাদি।

এরকম ফ্ল্যাটের কাজ করতে পারলে আপনার ক্যারিয়ার দাঁড়িয়ে যাবে।

যতটা সহজ ভাবছেন আসলে অতোটা সহজ নয়; আবার তেমন কঠিনও নয়, যতটা আপনি ভয় পাচ্ছেন। Toptal এর স্ক্রিন প্রপেস পার হতে পারলেই আপনি এখনে ইন্টারভিউ দেওয়ার সুযোগ পাবেন। আপনার যদি এর জন্য যোগ্যতা থাকে, অবশ্যই আপনি ইন্টারভিউ দিয়ে টিকে যাবেন। আর সফল হয়ে গেলেই আপনি ১০০% নিশ্চিত হতে পারেন যে, আপনি নিজ দেশে বসে বিদেশে চাকরি পাচ্ছেন। এসব কোম্পানীগুলোর কাজ চাকরি থেকেও অনেক বড় কিছু।

রেজিস্ট্রেশন করুন

Freelancer

আউটসোর্সিং ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে আরেকটি অন্যতম ওয়েবসাইট হলফ্রিল্যান্সার। ফ্রিল্যান্সার একটি অস্ট্রেলিয়ান ক্লাউড সোর্সিং মার্কেটপ্লেস ওয়েবসাইট, যা সম্ভাব্য নিয়োগকারীদের এমন পোস্ট করতে দেয় যা ফ্রিল্যান্সাররা এরপরে সম্পূর্ণ বিড করতে পারে।Matt Barrie ২০০৯ সালে এটি প্রতিষ্ঠা করেন। এর সদর দফতর অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে অবস্থিত। এছাড়াও ভ্যানকুভার, লন্ডন, বুয়েনস আইরেস, ম্যানিলা এবং জাকার্তাতেও এর অফিস রয়েছে। অসংখ্য লোক এটি ব্যবহার করে। জুলাই 7, 2020 এর হিসাব অনুযায়ী এর ব্যবহার কারীর সংখ্যা 45,618,783 জন।

আপনার যদি প্রতিযোগীতার মন মানসিকতা থাকে, নিজেকে যদি আউটসোর্সিং কাজের জন্য তৈরি করে নিয়ে থাকেন, তাহলে ফ্রিল্যান্সার আপনার জন্য কাজের ফ্রিডম রেখে দিয়েছে। আপনি খুব সহজে এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে কাজ করতে পারেন।

বর্তমানে অনেকে পড়াশোনার পাশাপাশি ফ্রিলান্সিং করে ইনকাম করে নিজের খরচ নিজেই চালাচ্ছে। অনেকে আবার চাকরির আশা বাদ দিয়ে এসব করে চাকরির চেয়ে ডাবল ইনকাম করছে। নিজের ইচ্ছে অনুযায়ী যেকোনো সময় কাজ করা যায়।

অন্যান্য ওয়েবসাইটগুলোর সাথে এ সাইটের প্রধান পার্থক্য হচ্ছে, এখানে আপনাকে অন্য ফ্রিল্যান্সারের সাথে প্রতিযোগীতা করে নিজের দক্ষতা প্রমাণ করতে হয়। এতেই খুলে যাবে আপনার আয়ের উৎস, ভবিষ্যৎ সম্ভাবণার দ্বার।

রেজিস্ট্রেশন করুন

College recruiter

নাম দেখেই বুঝা যাচ্ছে এই সাইট হচ্ছে কলেজ ছাত্রদের জন্য।১৯৯১ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।College recruiter বিশ্বাস কর যে প্রতিটি ছাত্র এবং সাম্প্রতিক গ্রেজুয়েট প্রাপ্ত ছাত্ররা দুর্দান্ত খণ্ডকালীন, মৌসুমী, ইন্টার্নশিপ, বা এন্ট্রি-স্তরের চাকরীর যোগ্য । এখানে সবাই সবার কলিগ, সবাই একে অপরকে বিভিন্ন টিপস দিয়ে সাহায্য-সহযোগীতা করে , কাজ পাইয়ে দেয়। আপনার কাজ হচ্ছে অন্যদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করা এবং সে সম্পর্ককে গভীর করা।

কিন্তু এটাই আপনার প্রধান কাজ নয়, প্রধান কাজ হচ্ছে ক্লায়েন্টের কাজ। ক্লায়েন্টরা মূলত কিছুটা কম টাকায় কাজ করিয়ে নেয়ার জন্য এখানে আসে।এখানে যারা কাজ করে দেয় তাদের প্রায় সবাই স্টুডেন্ট, কারণ সাইটাই প্রধানত স্টুডেন্টদের জন্যই করা।

আপনি যদি পড়াশুনার মাঝে থেকে থাকেন, তাহলে আপনারও জন্যও রয়েছে College recruiter এড হয়ে বাড়তি উপার্জনের সুযোগ।

রেজিস্ট্রেশন করুন

Guru

অনলাইনে ফ্রিল্যান্সারদের সন্ধান এবং নিয়োগ দেওয়ার জন্য Guru অন্যতম সেরা ফ্রিল্যান্স ওয়েবসাইট। ১৯৯৮ সালে সান ফ্রান্সিসকো, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।পিটসবার্গ, পেনসিলভেনিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এর সদর দপ্তর অবস্থিত।ইন্দর গুগলানি, জেমস স্লেভেট এর প্রতিষ্ঠাতা।

ফ্রিল্যান্সাররা ফ্রিল্যান্স কাজের জন্য এবং এছাড়াও কাজের জন্য অনুসন্ধান করতে পারে।এ ওয়েবসাইটে প্রত্যেক ফ্রিল্যান্সারকেই একটি করে ওয়ার্ক রুম দেয়া হয়।আপনি আপনার রুমে বসেই কাজ করবেন। আপনার ইচ্ছেমত নিজের মত করে সাজিয়ে নেবেন নিজের রুম,সেখানে রাখবেন পুরনো কাজের উদাহরণ যা দেখে ক্লায়েন্টরা সহজে আপনাকে চিনবে, আপনার কাজ সম্পর্কে ভাল ধারণা নিতে পারবে।

এর একটি দারুণ সুবিধা হচ্ছে,এ সাইটের অটোমেটিক ক্রলার খুঁজে খুঁজে যে কাজগুলো আপনার জন্য প্রয়োজন সেগুলো আপনার রুমের টেবিলে এনে রাখবে যাতে আপনি সেগুলো দেখে খুব সহজেই নিজের পছন্দ অনুযায়ী কাজটি করতে পারেন।

রেজিস্ট্রেশন করুন

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করা সত্যিই দারুণ ব্যাপার । এখানে কারো অধীনে কাজ করতে হয় না, এখানে আপনি নিজেই নিজের বস। আপনার ইচ্ছে হচ্ছে না ,শরীরটা একটু মেজ মেজ করছে,শুয়ে থাকতে হচ্ছে কোন ব্যাপার না কারণ অফিসের বস তো আপনি নিজেই।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x