অপেক্ষাকৃত কম পুঁজি বিনিয়োগ করে ক্ষুদ্র পরিসরে পণ্যদ্রব্য বা সেবাকর্ম উৎপাদন অথবা বিভিন্ন উৎপাদনকারী বা মধ্যস্থ ব্যবসায়ীর নিকট হতে পণ্যদ্রব্য ও সেবা সামগ্রী ক্রয় করে তা ব্যবহারকারীর নিকট বিক্রয় কার্যে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানসমূহকে ক্ষুদ্র ব্যবসা বলে। যেমন— কুটির শিল্প এক মালিকানা খুচরা ব্যবসায়। বাংলাদেশে সরকারিভাবে স্বল্প পুঁজি থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৩ কোটি টাকা বিনিয়োগকৃত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ক্ষুদ্র ব্যবসা বলে গণ্য করা হয়।

ক্ষুদ্র ব্যবসায়ের সুবিধা

ক্ষুদ্র ব্যবসায়ের ব্যক্তিগত, সামাজিক, পারিবারিক ও পেশাগত কতকগুলো সুবিধা রয়েছে। নিচে তা আলোচনা করা হলো:

১. ব্যক্তিগত সুবিধা :

  • ক্ষুদ্র ব্যবসায়ে ব্যক্তিগত কৃতিত্ব লাভ ও প্রদর্শনের এবং সকল দক্ষতা ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।
  • এতে নতুন নতুন প্রযুক্তি এবং কৌশল উদ্ভাবন ও প্রয়োগের সুযোগ রয়েছে।
  • এতে দায়িত্ববান হওয়ার সুযোগ বেশি।
  • বিনিয়োগ ও সম্পদ বৃদ্ধির সুবিধা।
  • ব্যবস্থাপনার উপর নিয়ন্ত্রণের সুবিধা।
২. সামাজিক সুবিধা :
  • সমাজে ব্যক্তিগত সুনাম বৃদ্ধি।
  • সমাজের বেকারদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি।
  • ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা হ্রাস।
  • দৃষ্টান্ত সৃষ্টিকারী ও অনুসরণীয় ব্যক্তিত্ব হিসেবে নিজেকে উপস্থাপনের সুবিধা।
৩. পারিবারিক সুবিধা :
  • ব্যবসায়ের স্বার্থে পরিবারের সবাই একসাথে কাজ করার সম্ভাবনা থাকে।
  • পরিবারের সদস্যরা ব্যবসায়ে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে।
  • প্রয়োজনে পরিবারের সম্পদ ব্যবসায়ের কাজে নিয়োগ করা যায়।
  • ব্যবসায়ের সাফল্যে পরিবারের সুনাম বৃদ্ধি পায়৷

৪. পেশাগত সুবিধা :

  • অধিকতর পেশাগত উন্নতির সম্ভাবনা থাকে।
  • কর্মক্ষমতার কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত হয়।
  • অধিকতর পরিপূর্ণ ও সামঞ্জস্যপূর্ণ গুণাবলি অর্জন করা যায়।
ক্ষুদ্র ব্যবসায়ের অসুবিধা
ক্ষুদ্র ব্যবসায়ের বিবিধ সুবিধা থাকা সত্ত্বেও এ কতকগুলো অসুবিধা রয়েছে। নিচে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ের অসুবিধাসমূহ আলোচনা করা হলো :
১. ব্যক্তিগত অসুবিধা :
  • সুনামহানির সম্ভাবনা থাকে।
  • ব্যর্থতার কারণে আর্থিক অপচয় হওয়ার ভয় থাকে।
  • ব্যক্তিগত আরাম-আয়েশ থেকে বঞ্চিত হয়।
  • আত্মবিশ্বাস লোপ পেতে পারে।
  • অতিরিক্ত পরিশ্রম স্বাস্থ্যহানি ঘটায়।
  • সময় অপচয়ের সম্ভাবনা থাকে।
২. সামাজিক অসুবিধা :
  • ব্যর্থতার কারণে সামাজিক মর্যাদা হ্রাস।
  • প্রাতিষ্ঠানিক নির্বাহী হওয়ার সুযোগ হতে বঞ্চিত।
  • ব্যবসায়ী মহলের সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের সুযোগ কম।
  • প্রাতিষ্ঠানিক সঞ্চয় হতে বঞ্চিত।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x