সুনামি কি? সুনামি সৃষ্টির কারণ। What is the Tsunami in Bengali/Bangla?
সুনামি কি? (What is the Tsunami in Bengali/Bangla?)

সুনামি একটি প্রাকৃতিক দুর্যোগের নাম। এটি মূলত একটি জাপানি শব্দ, যার অর্থ হলো ‘সমুদ্রতীরের ঢেউ’। সমুদ্রের তলদেশে কোনো কারণে ভূমিকম্প হলে বড় বড় ঢেউ জলোচ্ছ্বাস আকারে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে এবং অনেক ধ্বংস সাধিত যা সুনামি নামে পরিচিত৷ বাংলাদেশে সুনামির প্রভাব কম হলেও ভূমিকম্পপ্রবণ দেশ যেমন জাপানে এর বেশ প্রভাব রয়েছে।

পৃথিবীর মোট সুনামির প্রায় 70% প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলীয় অঞ্চলে, 9% ক্যারিবিয়ান সাগরে, 15% ভূমধ্যসাগর ও আটলান্টিক মহাসাগরে এবং 6% ভারত মহাসাগরের সংঘটিত হয়ে থাকে। প্রশান্ত মহাসাগরীয় আগ্নেয় বলয় কে কেন্দ্র করে অবস্থিত আলাস্কা, জাপান, ফিলিপিনস ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ গুলোতে বেশিমাত্রায় সুনামি দেখা যায়।
সুনামির বৈশিষ্ট্য (Characteristics of Tsunami)
সুনামির বৈশিষ্ট্য নিম্নরূপঃ
  • অনেকগুলি ঢেউ বা তরঙ্গের সমন্বয়ে একটি সুনামি গঠিত হয়। যা কয়েক মিনিট থেকে এক ঘন্টা পর্যন্ত স্থায়ী হয়।
  • সুনামি তার উৎপত্তির কেন্দ্র বিন্দু থেকে চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। কখনো কখনো একটি সুনামি সমগ্র সমুদ্রকে বেষ্টন করে থাকে।
  • সুনামি পূর্বে থেকে অনুমান করা সম্ভব হয় না। যে কোন স্থানে, যে কোন সময়, যে কোন মাত্রার সুনামি সৃষ্টি হতে পারে।
  • পৃথিবীর বেশির ভাগ সুনামি মূলত তীব্র মাত্রার ভূমিকম্পের ফলে হয়ে থাকে। কিন্তু সব ভূমিকম্প সুনামি সৃষ্টি করে না।
  • যেহেতু সুনামি যে কোন সময় যে কোন উপকূলে আঘাত হানতে পারে, তাই উপকূলের মানুষের কাছে সুনামি ভয়াবহতার একটি অন্যতম প্রধান কারণ।
  • সুনামির গতিবেগ  সমুদ্র জলের গভীরতার ওপর নির্ভর করে। গভির সমুদ্রের তুলনায় অগভীর সমুদ্রে সুনামির গতিবেগ বেশি হয়।
  • গভীর সমুদ্রে সুনামির তরঙ্গ দৈর্ঘ্য অনেক টাই বেশি হয় কিন্তু উপকূলের অগভীর সমুদ্রের নিকট তরঙ্গ দৈর্ঘ্য কমে গিয়ে তরঙ্গের উচ্চতা বৃদ্ধি পায়। একটি সুনামি তরঙ্গের উচ্চতা কয়েক সেমি থেকে কয়েক মিটার পর্যন্ত হতে পারে।

সুনামি সৃষ্টির কারণ
বিভিন্ন কারণে সাগরের তলদেশ ও পানিতে ট্রমা বা কম্পনের ফলে সুনামি সৃষ্টি হতে পারে। যেমন- জোরালো ভূমিকম্প, আগ্নেয়গিরির উদগীরণ কিংবা গ্রহাণু বা বড় ধরনের উল্কাপিণ্ডের আঘাতে এই ঢেউয়ের সৃষ্টি হতে পারে। প্রশান্ত মহাসাগরের সুনামির ঘটনা অতি সাধারণ। কারণ এ মহাসাগরের নিচেই রয়েছে বিশ্বের অর্ধেক আগ্নেয়গিরি। কম্পনের ফলেই সুনামির ঢেউ কোন রকম জানান দেয়া ছাড়াই উপকুলে আঘাত হানে। সুনামির শক্তি এতটাই প্রচন্ড যে ২০ মেট্রিক টন ওজনের পাথরের ব্লককেও ১৮০ মিটার পর্যন্ত ভাসিয়ে নিয়ে যেতে পারে।

সুনামিতে ক্ষতির কারণ
সুনামি হলে সমুদ্রের ওপরের পানিতে বিশাল ঢেউয়ের সৃষ্টি হয়। ফলে উপকুলীয় শহর ও লোকালয়ে আকস্মিক বন্যার সৃষ্টি করে। এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। যেমন- ১৭০৩ সালে সুনামি থেকে জাপান উপকুলে যে বন্যা হয় তাতে এক লাখেরও বেশি লোক মারা যায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x