সব ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তাদের স্টক মালের হিসাব রাখে। কোন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের মজুদ পণ্যের হিসাব নিকাশকে ইনভেনটরি বলা হয়।

কাঁচামাল ইস্যু থেকে শুরু করে উৎপাদনের কোন পর্যায়ে কি পরিমাণ কাঁচামাল মজুদ আছে, কোন পর্যায়ে কি পরিমাণ তৈরি পণ্য রয়েছে, কখন পণ্য তৈরির জন্য কাঁচামাল ক্রয়ের জন্য ক্রয় আদেশ প্রদান করতে হবে, কি পরিমাণ পর্যন্ত পণ্য স্টক রাখা হবে ইত্যাদি জটিল হিসাব-নিকাশ জানার জন্য ইনভেনটরি ব্যবস্থাপনার প্রয়োজন পড়ে। তাই কোম্পানির ইনভেনটরি ব্যবস্থাপনা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিভিন্ন একাউন্টিং প্যাকেজের সাহায্যে সহজে ইনভেনটরি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে মজুদ পণ্যের হিসাব নিকাশসহ সার্বিক অবস্থা জানা যায়।

কম্পিউটারে একাউন্টিং প্যাকেজের সাহায্যে সহজে ইনভেনটরি তৈরি করা যায়। এতে ইনভেন্টরি স্টক এন্ট্রি করে সেলস থেকে আপডেট করে বিভিন্ন ধরনের রিপোর্ট অটোমেটিক তৈরি করা যায়। যা যা করা যায়ঃ

  • ইনভেনটরি হিসেবের জন্য Ledger তৈরি করা।
  • Purchase ভাউচার তৈরি করা।
  • Stock Journal ভাউচার তৈরি করা।
  • Sales Voucher তৈরি করা।
  • Stock Summary দেখা এবং স্টক আইটেম অনুযায়ী রিপোর্ট।
  • Stock Items Analysis রিপোর্ট।
  • Transfer Aalysis রিপোর্ট।
  • Purchase Voucher Register রিপোর্ট।
  • Voucher Register কনফিগার করা।
  • মাসিক বা ত্রৈমাসিক মেয়াদে আইটেম সামারি দেখা।
  • Gross Profit নির্ণয়।
  • আইটেম অনুযায়ী মুনাফা দেখা।
  • সর্বশেষ স্টক এবং লাভ-ক্ষতির হিসাব ব্যালেন্স শীটে স্থানান্তর করা।
  • স্টক আইটেমসমূহের মূল্য নিরূপণ করা এবং স্টক ক্যাটাগরি তৈরি করা।
  • Category-এর আওতায় আইটেম স্থাপন।
  • ক্যাটাগরি অনুযায়ী রিপোর্ট দেখা।
  • পার্চেজ অর্ডার তৈরি করা এবং Pending পাচেজ অর্ডার দেখা।
  • সেলস্ অর্ডার তৈরি করা এবং ইনভয়েস তৈরি ও প্রিন্ট করা।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x