সাইবার ক্রাইম বলতে আমরা সাধারণত সাইবার স্পেস (Cyber Space) অর্থাৎ ইন্টারনেটকে কেন্দ্র করে যে সকল কম্পিউটার ক্রাইম (যেমন, কাউকে হেয় করা, টেলিমার্কেটিং এবং ইন্টারনেট ফ্রড, আইডেনটিটি এবং ক্রেডিট কার্ড তথ্য চুরি ইত্যাদি) সংঘটিত হয় তাদেরকে বুঝায়। বর্তমানে ইনফরমেশন ও কমিউনিকেশন টেকনোলজির বিকাশের কারণে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন জ্যামিতিক হারে বাড়ছে এবং সাথে সাথে বাড়ছে সাইবার ক্রাইমও (Cyber Crime)।

সাইবার ক্রাইম বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। যেমন–

  • কোন সিস্টেমের সকল রিসোর্স অবৈধভাবে ব্যবহার করা কিংবা ধ্বংস করার লক্ষ্যে বাহির থেকে ঐ সিস্টেমের সিকিউরিটি ভেদ করা (Penetration from outside)।
  • কোন সিস্টেমকে এমনভাবে পরিবর্তন করা কিংবা এমন পরিবেশ তৈরি করা যাতে ঐ সিস্টেম তার নির্ধারিত সার্ভিস প্রদানে অস্বীকৃতি (Denial-of-service) জানায়।
  • কোন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ইন্টারনেটের অপব্যবহারের (Employee abuse of Internet privileges) ফলে প্রতিষ্ঠানের ক্ষতিগ্রস্ত করা ইত্যাদি।

সাইবার ক্রাইমের হাত থেকে বাঁচার জন্য এখনো বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানগুলো নিজস্ব সিকিউরিটি সিস্টেম তৈরি করেনি ফলে সাইবার ক্রাইম কমছে না বরং বাড়ছেই। বিভিন্ন ধরনের সিকুরিটি সিস্টেম প্রয়োগ করে সাইবার ক্রাইম থেকে বাঁচা যায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x