সামাজিক যোগাযোগ বলতে ভার্চুয়াল যোগাযোগ ও নেটওয়ার্কের মাধ্যমে মানুষে মানুষে মিথস্ক্রিয়াকে বুঝায়। অর্থাৎ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে মানুষ যোগাযোগ ও ভাব প্রকাশের জন্য যা কিছু সৃষ্টি, বিনিময় কিংবা আদান-প্রদান করার জন্য যে মাধ্যম ব্যবহার করে তাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট বলে। এরূপ কিছু সাইটের নাম নিম্নে দেওয়া হল:

  • Facebook
  • Twitter
  • Google Plus+
  • LinkedIn
  • Pinterest
  • Tumblr
  • Instagram
  • Flickr
  • Vine
  • VK
  • Meetup
  • Tagged
ফেসবুক (FaceBook)
ফেসবুকের মালিক হলো ফেসবুক ইনক। মার্ক জাকারবার্গ হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যয়নকালে তার কক্ষনিবাসী এডওয়ার্ড সেভারিন, ডাস্টিন মস্কোভিত্স এবং ক্রিস হিউজেসের যৌথ প্রচেষ্টায় ফেসবুক নির্মাণ করেন। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ম্যানলো পার্কে ফেসবুকের সদর দপ্তর অবস্থিত। মার্ক জাকারবার্গ বর্তমানে ফেসবুকের চেয়ারম্যান এবং সিইও (CEO)
টুইটার (Twitter)
টুইটার (Twitter) সামাজিক আন্তঃযোগাযোগ ব্যবস্থা এবং মাইক্রোব্লগিংয়ের একটি ওয়েবসাইট যেখানে ব্যবহারকারীরা সর্বোচ্চ ১৪০ অক্ষরের বার্তা আদান-প্রদান ও প্রকাশ করতে পারেন। এই বার্তাগুলোকে টুইট (Tweet) বলা হয়ে থাকে। টুইটারকে ইন্টারনেটের এসএমএস হিসেবে অভিহিত করা হয়। টুইটারের মূল কার্যালয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকো শহরে।
গুগল প্লাস (Google Plus)
গুগল প্লাস বা সংক্ষেপে জি প্লাস হচ্ছে গুগল ইনকর্পোরেশনের একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট।
ইন্সটাগ্রাম (Instagram)
ইন্সটাগ্রাম হচ্ছে স্মার্টফোন এবং অ্যানড্রয়েড ফোনের অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে তৈরি হওয়া আলোকচিত্র এবং ভিডিওর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। ইন্সটাগ্রাম এর ছবি বর্গাকার এবং ভিডিওর দৈর্ঘ্য সর্বোচ্চ ১৫ সেকেন্ডের হয়। ইন্সটাগ্রাম এর প্রতিষ্ঠাতা কেভিন সিসট্রোম এবং মাইক ক্রিগার।
লিঙ্কডইন (LinkedIn)
এটি বিজনেস অরিয়েন্টেড বা পেশাজীবীদের সামাজিক যোগাযোগের একটি ওয়েবসাইট। সামাজিক যোগাযোগের এই সাইটটি পেশাজীবীরা বেশি ব্যবহার করে থাকে। এক পরিংখ্যানে দেখা যায়, ২০০৬ সালে এর সদস্যসংখ্যা ২০ মিলিয়নেরও অধিক হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার মাউন্ট ভিউতে এর সদর দপ্তর অবস্থিত।
পিন্টারেস্ট (Pinterest)
পিন্টারেস্ট একটি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট, যেখানে ফটো আপলোড, সংরক্ষণ এবং ফটো শেয়ার করা যায়। এই সাইটে শেয়ারকৃত ছবি বা ভিডিও পিন নামে পরিচিত। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোনিয়ার সানফ্রান্সিস্কোতে এর সদর দপ্তর অবস্থিত।
বেশতো
বেশতো বাংলাদেশের প্রথম সামাজিক যোগাযোগ ওয়েবসাইট। এর ধরন হলো মাইক্রোব্লগিং। ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ‘বেশতো’ যাত্রা শুরু করে। ‘বেশতো প্রশ্ন’ নামক একটি জনপ্রিয় সেবার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা প্রয়োজনীয় প্রশ্নের উত্তর খুজতে বা নতুন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতে পারে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x