যে সার্কিট ব্রেকারের মধ্যে তেল থাকে এবং এর অপারেশন বা অন-অফ ইনসুলেশন অয়েলের মধ্যে হয়ে থাকে, তাকে অয়েল সার্কিট ব্রেকার (Oil circuit breaker) বলে। অয়েল সার্কিট ব্রেকারে ব্যবহৃত অয়েল ইনসুলেশন এর কাজ করে ও আর্ক নিভায়। এ ধরনের সার্কিট ব্রেকারের ক্যাপাসিটি বা এম ভি এ রেটিং বেশি হয়।

অয়েল সার্কিট ব্রেকারে ব্যবহৃত তেলের পরিমাণের উপর নির্ভর করে একে দুভাগে ভাগ করা যায়।
১. মিনিমাম বা স্মল বা লো অয়েল সার্কিট ব্রেকার এবং
২. বাল্ক অয়েল সার্কিট ব্রেকার

বাল্ক অয়েল সার্কিট ব্রেকার আবার দুই ধরনের।
ক) প্লেইন ব্রেক টাইপ বাল্ক অয়েল সার্কিট ব্রেকার ও খ ) আর্ক নিয়ন্ত্রিত বাল্ক অয়েল সার্কিট ব্রেকার।

অয়েল সার্কিট ব্রেকারে ব্যবহৃত তেলের গুণাগুণ

অয়েল সার্কিট ব্রেকারে ব্যবহৃত তেল সার্কিট ব্রেকারের অপারেশন ও ক্যাপাসিটি বৃদ্ধিতে খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এ তেলের যে সমস্ত গুণাবলী থাকা আবশ্যক সেগুলো হলো–
(১) প্রয়োজনীয় ডাই-ইলেকট্রিক শক্তি থাকা আবশ্যক।
(২) তেলের ফায়ার পয়েন্ট ২০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড এর কম হওয়া ঠিক নয়।
(৩) ইহা অ্যালকালি, এসিড ও সালফার মুক্ত হওয়া প্রয়োজন।
(৪) ইহার আপেক্ষিক গুরুত্ব ০.৮ এর কম হবে না, অর্থাৎ অধিক পাতলা হবে না।
(৫) তেলের ভিসকোসিটি এমন হবে যাতে শীতেও তেল জমে না যায়৷
(৬) তেল অবশ্যই জলীয় বাষ্প ও ভাসমান পদার্থ মুক্ত হবে।

অয়েল সার্কিট ব্রেকারের ব্যবহার (Use of Oil circuit breaker)

অয়েল সার্কিট ব্রেকার বিদ্যুৎ সিস্টেমের সুষ্ঠু পরিচালনায় ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। আমাদের দেশে বর্তমানে বেশি ক্ষমতার সার্কিট ব্রেকার বলতে অয়েল সার্কিট ব্রেকারই বোঝায়। ইহার ব্যবহার নিচে উল্লেখ করা হলো–
১. প্রয়োজন অনুযায়ী পাওয়ার লাইন অন-অফ করতে, অয়েল সার্কিট ব্যবহার করা হয়।
২. বৈদ্যুতিক লাইনে ত্রুটির জন্য ক্ষয়-ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে, ইহা ব্যবহৃত হয়।
৩. সাপ্লাই ব্যবস্থায় ত্রুটিপূর্ণ অংশকে, ত্রুটিমুক্ত অংশ থেকে আলাদা করতে, ইহা ব্যবহার হয়।
৪. সিস্টেমের মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণে অফ করতে, ইহা ব্যবহার হয়।
৫. অয়েল সার্কিট ব্রেকার মূলত সাবস্টেশন, বড় বড় শিল্প কারখানায় ব্যবহৃত হয়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x