মৃত্যুর পরবর্তী জীবনকে আখিরাত বলে।

আখিরাত (পরকাল) ইমানের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হওয়ায় এতে বিশ্বাস করা জরুরি। আখিরাতে বিশ্বাস ছাড়া কেউ প্রকৃত ইমানদার হতে পারে না। তাছাড়া এটি মানুষকে পাপকাজ থেকে বিরত রাখে এবং পুণ্যকাজে উৎসাহ জোগায়। এ বিশ্বাস মানবজীবনকে কলুষমুক্ত, পবিত্র ও সুন্দর করে তোলে। ফলে পরকালীন জীবনে মুক্তিলাভ সম্ভব হয়। এসব কারণে আখিরাতে বিশ্বাস করা অপরিহার্য।

আখিরাত জীবনের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

আখিরাত জীবনের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো হলো–
১. কবরে সওয়াল-জওয়াব : সওয়াল অর্থ প্রশ্ন আর জওয়াব অর্থ উত্তর। মৃত্যুর পর প্রত্যেক মানুষকেই কবরে সওয়াল-জওয়াবের সম্মুখীন হতে হবে।
২. কবরে আরাম অথবা আজাব : পৃথিবীতে যারা পাপ কাজ থেকে বিরত থাকছে তাদের জন্য কবর হবে আরামের স্থান। আর যারা পাপী তাদের জন্য কবর হবে আজাবের স্থান।
৩. কিয়ামত : একদিন আল্লাহ বিশ্বজগৎ ও সমগ্র সৃষ্টিকে ধ্বংস করে দেবেন। এ দিনটির নাম হলো কিয়ামত।
৪. হাশর : পৃথিবী ধ্বংসের পর আল্লাহ সবাইকে পুনরায় জীবিত করবেন। সবাই আল্লাহর সামনে হাজির হবে। একে বলা হয় হাশর।
৫. মিযান : মিযান অর্থ পরিমাপ যন্ত্র। হাশরের দিন এটি দিয়ে আল্লাহ প্রত্যেক ব্যক্তির ভালোমন্দ কাজ ওজন করবেন।
৬. জান্নাত ও জাহান্নাম : জান্নাত চিরস্থায়ী সুখের স্থান। জাহান্নাম চিরস্থায়ী কষ্টের স্থান। হাশরের মাঠে বিচারের পর প্রত্যেক ব্যক্তি তার কর্মফল অনুযায়ী জান্নাত অথবা জাহান্নামে যাবে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x