বয়স বাড়ার সাথে সাথে বৃক্কের কাজকর্মেও পরিবর্তন ঘটে, বল (সক্ষমতা) ধীরে ধীরে কমে আসে। বলা হয়ে থাকে, ৭০ বছর বয়স্ক মানুষের বৃক্ক মাত্র ৫০% কাজে সক্ষম থাকে। রোগ ব্যাধির কারণে বৃক্কের সক্ষমতা কমে যাওয়াকে বৃক্ক বিকল বলে। বৃক্কের বিকল দুই ভাবে দেখা দিতে পারে, একটি হচ্ছে দীর্ঘক্ষণিক, অন্যটি তাৎক্ষণিক।

বৃক্কের বৈকল্য ঘটতে যদি কয়েক বছর লেগে যায় (অর্থাৎ ধীরে ধীরে বিকল হতে থাকে) তখন তা দীর্ঘক্ষণিক বিকল। অন্যদিকে, অকস্মাৎ (৪৮ ঘন্টার মধ্যে) বৃক্কের কাজ যদি প্রায় বা সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায় তখন তাকে বৃক্কের তাৎক্ষণিক বিকল বলে। বৃক্ক বিকলের চিকিৎসা অতিদ্রুত শুরু না করলে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ব্যক্তির মৃত্যু ঘটতে পারে।

তাৎক্ষনিক বৃক্ক বিকল-এর লক্ষণগুলো কি?

অতি অল্প, ঘন ও গাঢ় মূত্র ত্যাগ বা মূত্র একেবারেই না হওয়া; রক্তে নাইট্রোজেনজাত বর্জ্য পদার্থ সঞ্চিত হওয়া; শরীর ফুলে যাওয়া (অতিরিক্ত পানি মূত্র হিসেবে দেহে থেকে যাওয়ায়); পাঁজর ও কোমরের মাঝামাঝি দুপাশে ব্যথা (flank pain); ক্ষুধামান্দ্য, বমি-বমিভাব ও বমি করা; উচ্চ রক্তচাপ; রক্ত পায়খানা; হাত-পায়ে সংবেদ কমে যাওয়া; অনেকক্ষণ ধরে হেঁচকি তোলা; ঘন ঘন শ্বাস প্রভৃতি।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x