যে সব জৈব যৌগের আণবিক সংকেত এক ও অভিন্ন হওয়া সত্ত্বেও এদের গাঠনিক সংকেতের ভিন্নতার কারণে এবং অণুস্থিত পরমাণুসমূহের ত্রিমাত্রিক বিন্যাসের ভিন্নতার কারণে এদের ভৌত ও রাসায়নিক ধর্মে অন্তত দুই একটা পার্থক্য প্রকাশ পায়, সে সব যৌগকে সমাণু এবং যৌগের এ ধরনের ধর্মকে সমাণুতা (Isomerism) বলে।

যেমন, ইথানল (C2H5–OH) ও ডাইমিথাইল ইথার (CH3–O–CH3) উভয় যৌগ পরস্পরের সমাণু। উভয় যৌগের একই আণবিক সংকেত হলো C2H6O, কিন্তু গাঠনিক সংকেত ভিন্ন হওয়ায় এদের ভৌত ও রাসায়নিক ধর্মে পার্থক্য ঘটে।

সমাণুতার শ্রেণীবিভাগ
সমাণুতাকে প্রধানত দু শ্রেণীতে বিভক্ত করা যায়। যেমন,
(ক) গাঠনিক সমাণুতা ও (খ) স্টেরিও ত্রিমাত্রিক সমাণুতা।

Rate this post

By Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.