প্রশ্ন-১। এ্যাবাকাস কি?

উত্তরঃ এ্যাবাকাস হচ্ছে এক ধরনের গণনার যন্ত্র।

প্রশ্ন-২। কম্পিউটার কিভাবে কাজ করে?

উত্তরঃ কম্পিউটারের কার্যপদ্ধতি নিম্নরূপঃ-

১. সফটওয়্যার বা নির্দেশনার সাহায্যে কার্যক্রম পরিচালনা করে।

২. বিভিন্ন রকম ইনপুট ডিভাইসের মাধ্যমে ডেটা গ্রহণ করে।

প্রশ্ন-৩। প্রসেসর CORE কত প্রকার?

উত্তরঃ প্রসেসর CORE বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে। যেমনঃ

  • Dual core (ডুয়াল কোর) মানে 2 core
  • Quad core (কোয়াড কোর ) মানে 4 core
  • Hexa core (হেক্সা কোর )মানে 6 core
  • Octa core (অক্টা কোর) মানে 8 core
  • Deca core (ডেকা কোর) মানে 10 core

 

প্রশ্ন-৪। স্মৃতি ইনফরমেশন রেজিস্টার বা MIR কি?

উত্তরঃ স্মৃতি ইনফরমেশন রেজিস্টারকে স্মৃতি তথ্য রেজিস্টার ও স্মৃতি বাফার রেজিস্টার বলে। প্রধান স্মৃতি বা Main Memory ও ইনপুট রেজিস্টার থেকে তথ্য ও নির্দেশ স্মৃতি ইনফরমেশন রেজিস্টারে জমা রাখা হয়। অন্য স্মৃতি রেজিস্টার থেকে যে তথ্য বা নির্দেশ আনতে বা রাখতে হবে তার ঠিকানা যেখানে থাকে তাকে স্মৃতি ঠিকানা রেজিস্টার বা MAR (Memory Address Register) বলে। কম্পিউটারের স্মৃতিতে সাধারণত ২১০ থেকে ২২০ টি পর্যন্ত শব্দ থাকে। সুতরাং MAR এর সংখ্যা ১০বিট থেকে ২০বিট।

প্রশ্ন-৫। কোন কম্পিউটার পরিমাপন পদ্ধতিতে কাজ করে?

উত্তরঃ অ্যানালগ কম্পিউটার পরিমাপন পদ্ধতিতে কাজ করে।

প্রশ্ন-৬। কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারকে কত ভাগে ভাগ করা যায়?

উত্তরঃ কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারকে প্রাথমিকভাবে তিন ভাগে ভাগ করা যায়।

প্রশ্ন-৭। মাইক্রোপ্রসেসর আবিষ্কারের সাল কত?

উত্তরঃ মাইক্রোপ্রসেসর আবিষ্কারের সাল- ১৯৭১।

প্রশ্ন-৮। কম্পিউটার স্মৃতি ব্যবস্থাকে প্রধানত কত ভাগে ভাগ করা যায়?

উত্তরঃ কম্পিউটার স্মৃতি ব্যবস্থাকে প্রধানত দুই ভাগে ভাগ করা যায়।

প্রশ্ন-৯। কম্পিউটারের প্রধান বৈশিষ্ট কী?

উত্তরঃ কম্পিউটারের প্রধান বৈশিষ্ট কান্তিহীনতা।

প্রশ্ন-১০। কম্পিউটার পেরিফেরালস্ কত ভাগে ভাগ করা যায়?

উত্তরঃ কম্পিউটার পেরিফেরালস্ তিন ভাগে ভাগ করা যায়।

প্রশ্ন-১১। কম্পিউটারে প্যারাগ্রাফ (Paragraph) বলতে কি বুঝায়?

উত্তরঃ সাধারণত প্যারাগ্রাফ বা অনুচ্ছেদ বলতে আমরা বেশ কয়েকটি লাইন বা অনেকগুলো লাইনের সমন্বয়ে গঠিত একটি অংশকে বুঝি। কিন্তু কম্পিউটারের কাছে প্যারাগ্রাফের অর্থ হচ্ছে এন্টার কী (Enter Key) চাপ দিয়ে লাইন শুরু করা। একটি লাইন টাইপ করে এন্টার কী চাপ দিয়ে পরের লাইন টাইপ করলে কম্পিউটার দ্বিতীয় লাইনটিকে নতুন প্যারাগ্রাফ হিসেবে গণ্য করবে।

প্রশ্ন-১২। সাধারণ কম্পিউটার অপেক্ষা ল্যাপটপের দাম বেশি কেন?

উত্তরঃ ল্যাপটপ যেখানে সেখানে নেওয়া যায়, ওজনে অনেক কম এবং দেখতে অনেক সুন্দর। এ বিবেচনায় বাজারে এর অনেক চাহিদা রয়েছে এবং চাহিদা বেশি হওয়ার কারণে দামও বেশি। অন্যদিকে আকারে ছোট হওয়ার কারণে ল্যাপটপে বিশেষ ধরনের যন্ত্রাংশ ও প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হয়। একই ক্ষমতাসম্পন্ন ডেস্কটপ কম্পিউটারের চেয়ে তাই ল্যাপটপ কম্পিউটারের দাম কয়েক গুণ বেশি।

প্রশ্ন-১৩। সাধারণত কী কী মাধ্যমে কম্পিউটার ভাইরাস ছড়ায়?

উত্তরঃ সাধারণত যেসব মাধ্যমে কম্পিউটার ভাইরাস ছড়ায় তা হলোঃ

 

  • বাহির থেকে কম্পিউটারে সংযুক্ত হার্ডডিস্ক, ফ্লপি ডিস্ক, সিডি/ডিভিডি, ফ্ল্যাশ ড্রাইভ, মেমোরি কার্ড বা অন্য যেকোনো স্টোরেজের মাধ্যমে।
  • ইন্টারনেট ও ই-মেইলের মাধ্যমে।
  • নেটওয়ার্ক সিস্টেমের অন্তর্ভুক্ত এক কম্পিউটার হতে অন্য কম্পিউটারে।
  • পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে।

প্রশ্ন-১৪। সিক টাইম কাকে বলে?

উত্তরঃ চৌম্বক ডিস্কের ক্ষেত্রে রিড-রাইট হেডকে সঠিক ট্রাকে নিয়ে যেতে যে সময় লাগে তাকে বলে সিক টাইম। এর গড় মান ৩০ মিলিসেকেন্ড।

প্রশ্ন-১৫। কীভাবে পেস্ট করতে হয়?

উত্তরঃ কাট বা কপি করার পর ডকুমেন্টের কোথাও Ctrl ও v কী দুটি একত্রে চাপলে উক্ত অংশ হুবহু তৈরি হয়ে যাবে এবং পেস্ট সম্পন্ন হবে।

প্রশ্ন-১৬। ডাটা কম্প্রেসন বলতে কি বুঝায়?

উত্তরঃ ডাটা কম্প্রেসন বলতে ডাটা সংকুচিত অবস্থায় সংরক্ষণ করা বুঝায়। ডাটা কম্প্রেসনের উদ্দেশ্য প্রধানত দুটি – ১. ডাটার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, ২. কম্পিউটারের মেমরীর অপচয় রোধ করা। যে সকল পিসিতে বড় আকারের ডাটাবেজ ব্যবহার করা হয় সে সকল পিসিতে ডাটা কম্প্রেসনের মাধ্যমে কম্পিউটারের মেমরীকে ফ্রি রাখা হয়।

প্রশ্ন-১৭। কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং কী?

উত্তরঃ কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বা কম্পিউটার প্রকৌশল এমন একটি ফলিত বিদ্যা যাতে তড়িৎ প্রকৌশল ও কম্পিউটার বিজ্ঞান উভয় উপাদানই যুক্ত রয়েছে। কম্পিউটার প্রকৌশলী কম্পিউটিং এর মাইক্রোপ্রসেসর, পার্সোনাল কম্পিউটার এবং সুপার কম্পিউটার ডিজাইন থেকে শুরু করে সার্কিট ডিজাইনসহ সবক্ষেত্রে অবদান রাখে।

প্রশ্ন-১৮। ক্যাশ কি?

উত্তরঃ ক্যাশ এক বিশেষ ধরনের মেমোরি, যা ক্যাশ নিয়ন্ত্রকের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রিত হয় এবং সিস্টেমের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এই মেমোরিতে Frequently accessed তথ্যগুলো জমা রাখে। ফলে প্রসেসিং স্পীড বাড়ে। কম্পিউটারে সাধারণত দু’ধরনের Cache RAM থাকে- Internal (L1) এবং External (L2)। এই Cache মেমোরি মেইন মেমোরি থেকে Faster access-এর হয়ে থাকে।

প্রশ্ন-১৯। প্রোগ্রাম কাউন্টার কি?

উত্তরঃ প্রোগ্রাম কাউন্টারকে অনেক সময় ইন্সট্রাকশন পয়েন্টারও বলা হয়। এটি কোনো একটি নির্দেশের ঠিক পরের নির্দেশের ঠিকানা ধারণ করে। কোনো একটি ইনস্ট্রাকশন সম্পাদনের সময় নিয়ন্ত্রণ একক প্রোগ্রাম কাউন্টারের তথ্য বা ঠিকানা অ্যাড্রেস বাসে পাঠায় এবং মেমোরি থেকে এই ঠিকানার তথ্য পড়ে। এরপর প্রোগ্রাম কাউন্টারের সংখ্যা (ঠিকানা) CPU এর অভ্যন্তরীণ যুক্তি দ্বারা অটোমেটিক বৃদ্ধি পায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x